চরম গরমে হজ হবে এবার

haj
haj
প্রার্থনারত হজযাত্রীরা- ফাইল ছবি

এ বছর হজের সময় তাপমাত্রা থাকবে ৩৯ থেকে ৪৭ ডিগ্রী। আগামি দুই বছরও এমন উচ্চ তাপমাত্রা  অব্যাহত থাকতে পারে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে সৌদি আরবের আবহাওয়া অধিদপ্তর। সংস্থাটি বলছে, এবছর হজ মৌসুমে তাপমাত্রা সর্বোচ্চ রেকর্ড গড়তে পারে। ফলে স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে পড়ার আশংকা রয়েছে হজযাত্রীদের। খবর আরব নিউজের।

এদিকে এই মৌসুমে স্বাস্থ্য ঝুঁকি এড়াতে উদ্যোগ নিচ্ছে সৌদি সরকার। দেশটির হজ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এতো গরমে সানস্ট্রোকসহ স্বাস্থ্য ঝুঁকির নানা লক্ষণ দেখা দিতে পারে হ্জ্যাত্রীদের। যা তাদেরকে হজ পালনে বাধাগ্রস্ত করবে। তাই নিরাপদ ও আরামদায়ক হজপালনের কথা চিন্তা করেই অনেকটা আগে ভাগে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

সম্প্রতি এক বৈঠকে হজমন্ত্রী বান্দার হাজ্জ্বাজ বলেন, দেশটির বিশেষজ্ঞরা এ ব্যাপারে আলোচনা করেছেন। তারা কিভাবে হজযাত্রীদের কল্যাণে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়া যায় সে ব্যাপারে পরিকল্পনা করছেন।

তিনি আরও বলেন, “গরমের মৌসুমে হজ হওয়ায় আমরা ওই সব হজযাত্রীদের জন্য দেশটির বড় বড় তিনটি শহর মদীনা, জেদ্দা ও মক্কায় তাদের যাতায়াতে বিশেষ পরিবহণ ব্যবস্থা চালু করা হবে। পাশাপাশি তাদের জন্য ট্রেন সেবাও বাড়ানো হবে। এছাড়া হ্জ পরবর্তী সময়ে যারা ওমরা পালনের জন্য আসবেন তাদের জন্যও এই ব্যবস্থা অব্যাহত থাকবে” বলে জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, গত বছরে পবিত্র হজ পালন করতে এসে প্রচণ্ড গরম ও বৈরী আবহাওয়ায় অনেক বাংলাদেশি হজযাত্রী অসুস্থ হয়ে পড়েন। বিশেষ করে প্রচণ্ড গরমের মধ্যে হেঁটে যাতায়াতের কারণেই অসুস্থ হয়ে যান অনেক হজযাত্রী। এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ওই সময়ে ৪৩ থেকে ৪৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস ও রাতে ২৮ থেকে ৩১ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা ছিল মরুর দেশটিতে।

উল্লেখ্য, প্রতিবছর বাংলাদেশ থেকে লাখের বেশি হজযাত্রী হজ পালনের উদ্দেশ্যে সৌদিতে পৌঁছেন।

এস রহমান/