কর রেয়াত বাড়িয়ে পঞ্চাশ হাজার টাকা করার প্রস্তাব

nbr dse cse

nbr dse cseপুঁজিবাজারের স্থিতিশীলতার স্বার্থে কর রেয়াতের পরিমাণ ১০ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ৫০ হাজার টাকা করার দাবী জানিয়েছে ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ। বুধবার  রাজধানীর সেগুনবাগিচায় রাজস্ব ভবনে প্রাক-বাজেট আলোচনায় তারা এ দাবী  জানিয়েছেন। পুঁজিবাজারে স্থিতিশীলতা ফিরিয়ে আনা ও একে গতিশীল করার স্বার্থে আরও কিছু প্রস্তাব তুলে ধরা হয় ওই বৈঠকে।

এনবিআরের চেয়ারম্যান গোলাম হোসেনের সভাপতিত্বে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন ডিএসইর চেয়ারম্যান বিচারপতি সিদ্দিকুর রহমান মিয়া, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. স্বপন কুমার বালা, পরিচালক রুহুল আমিন, শাকিল রিজভী, খাজা গোলাম রসূল, মোহাম্মদ শাজাহান, শরীফ আনোয়ার, সিএসই’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ সাজিদ হোসেন, সিএফও আহমেদ দাউদ, সিডিবিএলের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক শুভ্র কান্তি চৌধুরী।

দুই স্টক এক্সচেঞ্জ লভ্যাংশের উপর থেকে উৎসে আয় কর প্রত্যাহারের প্রস্তাব দিয়েছে। এ বিষয়ে বলা হয়েছে, এই করের ফলে দ্বৈত করের জটিলতা তৈরি হয়েছে। তালিকাভুক্ত কোম্পানি একবার তার আয়ের উপর কর দিচ্ছে। আবার একই আয়ের ভিত্তিতে ঘোষিত লভ্যাংশে কর দিতে হচ্ছে। এটি অযৌক্তিক। এই কর প্রত্যাহার করা হলে কোম্পানি লভ্যাংশ দেওয়ার সক্ষমতা বাড়বে।

কর রেয়াতের পরিমাণ ১০ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ৫০ হাজার টাকা করার প্রস্তাবে যুক্তি, পুঁজিবাজারে মন্দার কারণে বিনিয়োগকারীরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। অনেকের আয় করযোগ্য সীমার নিচে থাকার পরও উৎসে কর কাটা হচ্ছে। তাই বিনিয়োগকারীদের স্বার্থে কর রেয়াত সুবিধা বাড়ানো প্রয়োজন।

প্রস্তাবে করপোরেট আয়ে রেয়াত সুবিধা পুনর্বিন্যাসের কথা বলা হয়। বর্তমানে ২০ শতাংশের বেশি লভ্যাংশ দিলে সংশ্লিষ্ট কোম্পানি তার আয়ের উপর ১০ শতাংশ কর রেয়াত পায়। স্টক এক্সচেঞ্জ প্রস্তাব দিয়েছে ২০ শতাংশের বেশি কিন্তু ২৫ শতাংশের কম লভ্যাংশের ক্ষেত্রে ১০ শতাংশ এবং ২৫ শতাংশের বেশি লভ্যাংশের ক্ষেত্র ১৫ শতাংশ কর রেয়াত দেওয়ার।

বর্তমানে মূলধনী মুনাফার ক্ষেত্রে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদেরকে ১০ শতাংশ হারে কর দিতে হয়। ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ প্রস্তাব দিয়েছে এটিকে বিভিন্ন মেয়াদের সঙ্গে সম্পৃক্ত করে কর হার নির্ধারণের। এক থেকে দুই বছর পর্যন্ত শেয়ার ধারণ করলে সাড়ে ৭ শতাংশ হারে, ২ থেকে ৩ বছর পর্যন্ত ধারণ করলে ৫ শতাংশ এবং ৩ বছরের বেশি ধারণ করলে শূণ্য শতাংশ কর আরোপের প্রস্তাব দিয়েছে।

অনুষ্ঠানে এনবিএরের চেয়ারম্যান বলেন, আপনারা যে প্রস্তাব দিয়েছেন আমরা এটি শুনেছি। এগুলো নিয়ে উর্ধ্বতন ব্যক্তিদের সঙ্গে আলোচনা করে আগামি বাজেটে পুঁজিবাজারকে এগিয়ে নেওয়ার মতো কিছু রাখার জন্য বলবো।

অর্থসূচক/জিইউ/