২৩ এপ্রিল খালেদার মামলার আদেশ

খালেদা জিয়া

খালেদা জিয়াজিয়া অরফানেজ ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে বিচারিক আদালতে অভিযোগ গঠনের আদেশ বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে করা আবেদনের ওপর শুনানি শেষ হয়েছে। আগামি ২৩ এপ্রিল এ বিষয়ে মামলার আদেশ দেওয়া হবে।

রোববার বিচারপতি বোরহানউদ্দিন ও বিচারপতি কেএম কামরুল কাদের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে তৃতীয় দিনের শুনানি শেষে আদেশের দিন নির্ধারণ করেন।

এর আগে জিয়া অরফানেজ ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার অভিযোগ গঠনের আদেশ বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেন তিনি।

এর আগে গত ১৩ এপ্রিল খালেদা জিয়ার পক্ষে বিচারিক আদালতে অভিযোগ গঠনের আদেশ বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেন আইনজীবী ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন। আবেদনে মামলা দুটির কার্যক্রম স্থগিত ও বিচারিক আদালতের নথি তলবের জন্যও বলা হয়েছে।

খালেদা জিয়ার করা আবেদনের পক্ষে আদালতে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন, এজে মোহাম্মদ আলী, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, রফিকুল ইসলাম মিয়া। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম এবং দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পক্ষে অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ খুরশীদ আলম খান।

২০১১ সালের ৮ আগস্ট সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াসহ চারজনের বিরুদ্ধে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলা দায়ের করেন দুর্নীতি দমন কমিশনের সহকারি পরিচালক হারুনুর রশিদ। এছাড়া জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের অনিয়মের অভিযোগে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই রমনা থানায় মামলাটি দায়ের করে দুদক। মামলায়  সৌদি আরব থেকে এতিমদের জন্য আসা দুই কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৭১ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ আনা হয়।

দুদকের সহকারি পরিচালক হারুনুর রশিদ ২০১০ সালের ৫ আগস্ট খালেদা জিয়া, তারেক রহমানসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে এ মামলায় অভিযোগপত্র দেন। এই দুটি মামলায় খালেদা জিয়াসহ নয়জনের বিরুদ্ধে গত ১৯ মার্চ ঢাকা মহানগর আদালত-৩ এর বিচারক বাসুদেব রায় অভিযোগ গঠনের আদেশ দেন। এর বিরুদ্ধে খালেদা জিয়ার পক্ষে হাইকোর্টে ১৩ মার্চ আবেদন করা হয়।