অনুমোদনের অপেক্ষায় রাইট ইস্যুর ছয় প্রস্তাব

  • Emad Buppy
  • January 31, 2014
  • Comments Off on অনুমোদনের অপেক্ষায় রাইট ইস্যুর ছয় প্রস্তাব

shareপুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জের (বিএসইসি) অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে ছয়টি কোম্পানির রাইট শেয়ার ইস্যুর আবেদন। কোম্পানিগুলো বিদ্যমান মূলধনের অর্ধেক থেকে দেড়গুণ পর্যন্ত মূলধন বাড়াতে চায়। তবে সব কিছুই নির্ভর করবে বিএসইসির অনুমোদন পাওয়া না পাওয়ার উপর।

কোম্পানিগুলো হলো- মাইডাস ফিন্যান্স, জি এস পি ফিন্যান্স, জেনারেশন নেক্সট, তাল্লু স্পিনিং, জিকিউ বলপেন ও ডেল্টা স্পিনিং। এক বছর আগেও প্রায় দেড় ডজন কোম্পানির রাইট প্রস্তাব জমা ছিল বিএসইসির কাছে। বাজারে মন্দার কারণে ২০১১ ও ১২ সালে রাইট অনুমোদনে ধীর গতিতে এগিয়েছে বিএসইসি। তবে গত এক বছরে প্রায় এক ডজন কোম্পানির আবেদন নিষ্পন্ন করেছে। আইনের বিভিন্ন শর্ত পরিপালন না করতে না পারায় আনেকগুলো আবেদন নাকচ হয়ে যায়।

জানা গেছে, মাইডাস ফিন্যান্স ও জি এস পি ফিন্যান্স বাংলাদেশ ব্যাংকের শর্ত অনুযায়ী ব্যসেল টু বা ন্যূনতম মূলধনের আন্তর্জাতিক রীতি অনুসরণে মূলধন বাড়াবে। এজন্য কোম্পানি দু’টিকে তাদের পরিশোধিত মূলধন কমপক্ষে ১০০ কোটি টাকা করতে নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। আর এ শর্ত পূরণের জন্যই তারা সাধারণ বিনিয়োগকারীদের থেকে টাকা সংগ্রহের চেষ্টা করছে।

বিএসইসি কোম্পানিগুলোকে রাইট ছাড়ার অনুমোদন দিলে কোম্পানি দুটি বাজার থেকে ১২০ কোটি ৪০ লাখ ৬৬ হাজার ২৯০ টাকা তুলবে। এর মধ্যে মাইডাস ফিন্যান্স ১০ টাকা ফেসভ্যালুতে একটি শেয়ারের বিপরীতে একটি শেয়ার ইস্যু করবে। কোম্পানিটি ছয় কোটি এক লাখ ৩৪ হাজার ৩৩৮টি শেয়ার ইস্যুর মাধ্যমে ৬০ কোটি ১৩ লাখ ৪৩ হাজার ৩৮০ টাকা তুলতে পারবে।

অন্যদিকে, জি এস পি ফিন্যান্স ১০ টাকা ফেসভ্যালুতে একটি শেয়ারের বিপরীতে একটি শেয়ার দিবে। কোম্পানিটি ছয় কোটি দুই লাখ ৭২ হাজার ২৯১টি শেয়ার ইস্যুর মাধ্যমে ৬০ কোটি ২৭ লাখ ২২ হাজার ৯১০ টাকা তুলতে পারবে।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মূখপাত্র ম.মাহফুজুর রহমান অর্থসূচককে বলেন, যতো দ্রুত সম্ভব কোম্পানিগুলো তাদের পরিশোধিত মূল ১০০ কোটি টাকা করতে বলা হয়েছে।এ জন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংক সার্বক্ষণিকভাবে তদারকি করছে। তবে নির্ধারিত কোনো সময় নেই বলে জানান তিনি।

জেনারেশন নেক্সট ১০ টাকা ফেসভ্যালুতে তিনটি শেয়ারের বিপরীতে দুইটি শেয়ার দিবে। কোম্পানিটি ১১ কোটি ২৪ লাখ ৭৮ হাজার ৪০০টি শেয়ার ইস্যুর মাধ্যমে ১১২ কোটি ৪৭ লাখ ৮৪ হাজার টাকা তুলবে।

আর ১০ টাকা ফেসভ্যালুতে একটি শেয়ারের বিপরীতে একটি শেয়ার দিবে তাল্লু স্পিনিং। কোম্পানিটি আট কোটি ১২ লাখ ১৩ হাজার ৯৭৮টি শেয়ার ইস্যুর মাধ্যমে ৮১ কোটি ২১ লাখ ৩৯ হাজার ৭৮০ টাকা তুলবে।

এদিকে, জিকিউ বলপেন তুলবে ৩৪ কোটি ৯৩ লাখ ৬০ হাজার ১১০ টাকা। এজন্য কোম্পানিটি ১০ টাকা ফেসভ্যালুতে একটি শেয়ারের বিপরীতে এক দশমিক ৫টি শেয়ার দিবে। এবং ডেল্টা স্পিনিং ১০ টাকা ফেসভ্যালুতে একটি শেয়ারের বিপরীতে দুইটি শেয়ার দিবে। কোম্পানিটি নয় কোটি ১৭ লাখ ২৫ হাজার ৬০০টি শেয়ার ইস্যুর মাধ্যমে ৯১ কোটি ৭২ লাখ ২৫ হাজার টাকা সংগ্রহ করবে।

সংস্থাটির নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র সাইফুর রহমান দেশের বাহিরে থাকায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি। তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএসইসির এক উর্ধ্বতন কর্মকর্তা অর্থসূচককে বলেন, তারা কোম্পানিগুলোর রাইট অনুমোদনের আগে খুব ভালোভাবে যাচাই-বাছাই করছেন। সব ধরনের যাচাই-বাছাই শেষ হলেই কমিশন বৈঠকে উঠবে। কমিশন কোম্পানিগুলোর সার্বিক অবস্থা দেখে অনুমোদনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে।

জিইউ