গুরুত্ব পেয়েছে বিদ্যুৎ ইস্যু

enewspaprer

enewspaprerআজ বুধবার দেশের বেশিরভাগ পত্রিকা ভিন্ন ভিন্ন বিষয় নিয়ে লিড নিউজ করেছে। তবে বিদ্যুৎ নিয়ে বিলাসিতার খবরটি অনেক বেশি গুরুত্ব পেয়েছে।

একদিকে বিদ্যুতের জন্য হাহাকার, অন্যদিকে বিদ্যুৎ নিয়ে বিলাসিতা করা হচ্ছে। একই রাস্তায়, একই খুঁটি কিন্তু বিদ্যুতের বিতরণ লাইন ২টি। যেখানে একটি বিতরণ লাইনই যথেষ্ট সেখানে সরকারেরই ২টি সংস্থা পিডিবি ও আরইবি ২টি লাইন স্থাপন করেছে। বহু স্থানে একজন গ্রাহককেই ২টি লাইন থেকেই বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হচ্ছে।

অনুসন্ধানে দেখা গেছে, দেশের ২৩ জেলায় এরকম ১২ হাজার কিলোমিটার দ্বৈত বিতরণ লাইনের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে। আইন অনুযায়ী, একই স্থানে সরকারের ২টি সংস্থার বিতরণ লাইন থাকার কোনো বিধান নেই। কিন্তু পিডিবির কিছু দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা-কর্মচারী এভাবে লাইন স্থাপন করেছেন। এই ১২ হাজার কিলোমিটার লাইন নতুন এলাকায় স্থাপন করা হলে ৫ লাখের বেশি নতুন সংযোগ দেওয়া যেত। ফলে কয়েক লাখ মানুষ বিদ্যুৎ সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।

সমকালের লিড নিউজের শিরোনাম হলো-‘ বিদ্যুৎ নিয়ে বিলাসিতা’। পত্রিকাটি দ্বিতীয় লিড নিউজ করেছে- ‘সচিব পদে পদোন্নতি দিতে তোড়জোড়’।

প্রথম আলোর লিড নিউজ করেছে- ‘দুর্ঘটনা কমাতে সরকার নিষ্ক্রিয়!’ এর দ্বিতীয় লিড নিউজ হলো- ‘৯০ ভাগ মৃত্যুই ৫৫ কিলোমিটারে।’

কালের কণ্ঠ লিড নিউজ করেছে- ‘মৌখিক পরীক্ষায় চাকরি পেয়ে তাঁরা বিসিএস কর্মকর্তা!’ পত্রিকাটির দ্বিতীয় লিড নিউজের শিরোনাম হলো-‘দেশের বৃহত্তম প্রকল্প একনেকে অনুমোদন’। এর টিকার হলো- ‘৩৬ হাজার কোটি টাকায় কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ হবে’।

দৈনিক ইত্তেফাকের লিড নিউজের শিরোনাম হলো- ‘আদালতে চ্যালেঞ্জ হবে সংসদের ক্ষমতা’। এর উপ- শিরোনাম হলো- ‘বিচারক অপসারণ ইস্যু’।

ইংরেজি দৈনিক দ্য ডেইলি স্টার লিড নিউজ করেছে- ‘Target a complete electricity hub’. এর টিকার হলো- ‘Govt approves largest ever investment proposal for coal-based project near Maheshkhali.’

দ্য ফিনান্সিয়ালের লিড নিউজের শিরোনাম হলো- ‘Govt borrowing in last fiscal at three-year low’. এর টিকার হলো- ‘Sale of savings tools marks phenomenal rise’.

এএসএ/