আড়ং এখন অনলাইনেও

aarong
aarong
ব্র্যাক সেন্টারে আড়ংয়ের অনলাইন সেবার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তামারা আবেদ, আতিউর রহমান, ফজলে আবেদ ও তাহসান। (ছবি-মহুবার রহমান)

ঘরে বসেই এখন কেনাকাটা করা যাবে আড়ং-এর সব ধরনের পণ্য। আর ক্রেতাদের এ সুবিধা দিতে আড়ং চালু করেছে অনলাইন শপিং।
এর জন্য আপনাকে ব্রাউজ করতে হবে www.aarong.com এ।

বুধবার বিকেলে রাজধানীর ব্র্যাক সেন্টারে এ ওয়েবসাইটের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমান। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি উপস্থিত ছিলেন ব্র্যাকের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারপারসন স্যার ফজলে হাসান আবেদ।

এছাড়া ব্র্যাক এন্টারপ্রাইজের সিনিয়র ডিরেক্টর তামারা আবেদ, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব ইরেশ জাকের, তাহসান খান এবং ব্র্যাকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

গভর্নর বলেন, বিশ্বায়নের এ যুগে ই-কমার্স সবচেয়ে কার্যকর ভূমিকা রাখছে। উন্নত দেশগুলো এ কার্যক্রমে অগ্রণী ভূমিকা রাখলেও বর্তমানে উন্নয়নশীল দেশগুলো দ্রুত এ ব্যবসায় যুক্ত হয়েছে।

atiur
বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর আতিউর রহমান। (ছবি-মহুবার রহমান)

তিনি আরও বলেন, ই-কমার্সের লেনদেন বাড়াতে বাংলাদেশ ব্যাংক টু ফ্যাক্টর অথেনটিকেশন নিশ্চিত করতে ব্যাংকগুলোকে নির্দেশ দিয়েছে। এর ফলে ই-কমার্স আরও নিরাপদ হবে এবং ব্যাংকগুলোও ঝুঁকিমুক্তভাবে ই-কমার্সের জন্য ক্রেডিট কার্ড ওপেন রাখতে পারবে।

আতিউর রহমান জানান, বর্তমানে বাংলাদেশে বছরে প্রায় ২০০ কোটি টাকার ই-কমার্স লেনদেন হচ্ছে।

তিনি বলেন, কুরবানীর গরু থেকে শুরু করে পদ্মার ইলিশ, নকশী কাঁথা, শাকসবজী সবই ই-কমার্সের মাধ্যমে বিক্রি হচ্ছে।

গভর্নর জানান, বর্তমানে দেশে ই-কমার্স সেবা প্রদানকারী ৪০টির অধিক সক্রিয় ওয়েব পোর্টাল রয়েছে। এছাড়া ১০০টির বেশি ফ্যাশন হাউজ ই-কমার্সের মাধ্যমে তাদের পণ্য বিক্রি করছে।

ফজলে হাসান আবেদ বলেন, ১৯৭৮ সালে প্রতিষ্ঠা করা হয় আড়ং। এর ফলে এক লাখেরও বেশি কারুশিল্পী তাদের পণ্য বিক্রির সুযোগ পায়। পাশাপশি এটা কারুশিল্পের ক্ষেত্রে সঠিক নির্দেশনা দেওয়ায় অতিদ্রুত মানুষের অন্তরে জায়গা করতে পেরেছে। কারুশিল্পীদের এসব পণ্য দেশ ছাড়িয়ে বিদেশে বিক্রির জন্যই অনলাইনের মাধ্যমে আড়ংয়ের পণ্য কেনাকাটার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, পাশাপাশি বিশ্বের যে ১১টি দেশে ব্র্যাক তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করছে সেসব দেশের পণ্যও এ অনলাইনে পাওয়া যাবে।

তামারা আবেদ জানান, ক্রেতাসাধারণের কেনাকাটাকে আরও উপভোগ্য করতেই আড়ংয়ের এই নতুন সংযোজন। এর মাধ্যমে আড়ংয়ের আন্তর্জাতিক মানের পণ্যসমূহকে দেশের যে কোনো প্রান্তে ক্রেতা সাধারণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেওয়া হবে।

তিনি বলেন, প্রবাসীরাও দেশে অবস্থিত তার প্রিয়জনদের জন্য উপহার পণ্য অর্ডার করতে পারবেন। ক্রেতারা ক্যাশ অন ডেলিভারি, বিকাশ, ভিসা কার্ড ও মাস্টার কার্ডের মাধ্যমে তাদের মূল্য পরিশোধ করতে পারবেন।

এছাড়া পণ্য পরিবর্তন করতে চাইলে আড়ংয়ের যে কোনো আউটলেটে যোগাযোগ করলেই হবে বলে জানান তামারা।

এসএই/এসবি