বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যানের অপসারণ দাবি

  • Emad Buppy
  • May 17, 2014
  • Comments Off on বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যানের অপসারণ দাবি
lance
lance
বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যানের অপসারণ দাবিতে বিক্ষোভ

মুন্সিগঞ্জের গজারিয়ায় মেঘনা নদীতে ডুবে যাওয়া লঞ্চের নিখোঁজ হওয়া যাত্রীদের যথাসময়ে উদ্ধারে কর্তৃপক্ষ চরম ব্যর্থতা ও গাফিলতির পরিচয় দিয়েছে। এজন্য অনতিবিলম্বে বিআইডব্লিউটিএ এর চেয়ারম্যানকে তার পদ থেকে অপসারণের দাবি জানিয়েছেন সড়ক ও রেলখাত রক্ষা জাতীয় কমিটির আহ্বায়ক আশীষ কুমার দে।

শনিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে নৌ, সড়ক ও রেলখাত রক্ষা জাতীয় কমিটি আয়োজিত এক বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এ দাবি জানান।

তিনি বলেন, ৪৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে বিআইডব্লিউটিএ বিদেশ থেকে অত্যাধুনিক দু’টি উদ্ধার জাহাজ কিনেছে। কিন্তু গত বৃহস্পতিবার গজারিয়ায় মেঘনা নদীতে এমভি মিরাজ-৪ ডুবে গেলেও লঞ্চটি এখনও উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। যার ফলে নিহতদের সংখ্যা ক্রমান্বয়ে বাড়ছে। এর দায়ভার সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকেই নিতে হবে।

তিনি আর বলেন, এমভি মিরাজ-৪ ডুবে যাওয়ার ঠিক ১১দিন আগে পটুয়াখালির গলাচিপায় আরেকটি লঞ্চ ডুবির ঘটনা ঘটেছিল। মাষ্টারশিপ পরীক্ষা কমিটি অদক্ষ ব্যক্তিদের সনদ দেওয়ার কারণেই প্রতিবছর এ ধরনের নৌ-দুর্ঘটনা ঘটছে।

নিরাপদ নৌ-পথ বাস্তবায়ন আন্দোলন ও বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি আয়োজিত অপর এক মানববন্ধনে নৌ-দুর্ঘটনার কারণগুলো তুলে ধরে বক্তারা বলেন, লঞ্চের নকশা সংক্রান্ত ত্রুটি, চালকের অদক্ষতা, মাষ্টার সুকানীর গাফিলতি, অতিরিক্ত যাত্রী ও মালামাল বহন, নিরাপত্তা আইন অমান্য করা, আবহাওয়ার পূর্বাভাস সম্পর্কে না জানা এবং ত্রুটিযুক্ত নৌ-যান চলাচলের কারনেই প্রতিনিয়ত নৌ-দুর্ঘটনা ঘটছে।

এসব দুর্ঘটনা এড়ানোর লক্ষ্যে তারা কয়েকটি দাবি তুলে ধরেন। যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো-নৌ-যানে মানুষ হত্যার দায়ে ফৌজদারী মামলা দাযের করা, নিহত পরিবারদেরকে উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ ও পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করা, ত্রুটিযুক্ত নৌ-যান চলাচল বন্ধ করা, সরকারকে নৌ-দুর্ঘটনাকে দূ্র্যোগ হিসেবে বিবেচনা করতে হবে।

সংগঠনের আহবায়ক আশীষ কুমারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনের (বাপা) যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক মিহির বিশ্বাস, নাগরিক সংহতির সাধারণ-সম্পাদক শরিফুজ্জামান শরিফ প্রমুখ।

জেইউ/এ এস