৮০ লাখ টাকার কাপড় উদ্ধার, আটক ১

Chittagong Sea Port
চট্টগ্রাম বন্দর
ছবি: চট্টগ্রাম বন্দর (ফাইল ছবি)

চট্টগ্রাম বন্দর থেকে চুরি যাওয়া আমদানি করা কাপড় পরিত্যক্ত অবস্থায় নগরীর টেরি বাজার এলাকা থেকে উদ্ধার করেছে বন্দর থানা পুলিশ। বুধবার দুপুর ২টার পর কাপড়গুলো উদ্ধার করা হয়।

এতে জড়িত থাকার দায়ে আমির হোসেন (২৭) নামের বিক্রয় মধ্যস্থতাকারীকে (ব্রোকার) আটক করেছে পুলিশ।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বন্দর থানার এসআই ওমর ফারুক বলেন, গত সোমবার চীন থেকে আমদানি করা ২৬০ রোল কাপড় বন্দর থেকে চুরি হয়। এর মধ্যে টেরি বাজারের কাটা পাহাড় লেইন এলাকার একটি ভবনের পাশে পরিত্যক্ত অবস্থায় ২৪০ রোল কাপড় পাওয়া যায়। কাপড়গুলো পাইকারি মার্কেটে বিক্রি করা হয়েছিল।

তিনি বলেন, এর আগে বিভিন্ন সময়ে আমদানি করা কাপড় বন্দর থেকে চুরি হয়েছিল। এসব কাপড় একাধিকবার টেরি বাজার থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। এসব চুরি হওয়া কাপড় ক্রয়ের সাথে টেরি বাজারের একাধিক ব্যবসায়ী জড়িত থাকার প্রমাণও পাওয়া গেছে।

টেরি বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ওসমান গনি দাবি করেন, এ ধরনের কোনো অন্যায় কাজের সাথে ব্যবসায়ীদের সংগঠন জড়িত নয়। বাজার সবার জন্য উন্মুক্ত, তাই যে কেউ এই বাজারে প্রবেশ করে এই ধরণের অবৈধ কাজ করতে পারে।

বন্দরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা ভেদ করে পণ্য চুরি হওয়ার বিষয়ে মামলার তদন্ত কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন মহলে নানা অভিমত শোনা যাচ্ছে।

মামলার বাদি ওনারস গ্রুপের ম্যানেজার (সিএন্ডএফ ডিভিশন) মো. মাসুদুর রহমান জানান, বন্দরের নিরাপত্তার ত্রুটির কারণে এ ধরনের ঘটনা ঘটছে। সোমবার দুপুর থেকে সন্ধ্যা ৭টার মধ্যে বন্দরের জেআর ইয়ার্ড থেকে কাপড়গুলো চুরি হয়।

তিনি জানান, বিজিএমইএ’র সাবেক সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিনের মালিকানাধীন ওনারস গ্রুপের একটি পোশাক কারখানার জন্য চীন থেকে ফেব্রিক্স জাতীয় এসব কাপড় আমদানি করা হয়েছিল।