১১ বছর পর রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের কাউন্সিল কাল

student league

student leagueদীর্ঘ ১১ বছর পর আগামিকাল বুধবার রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের কাউন্সিল হতে যাচ্ছে। বুধবার দুপুর ২ টায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ অডিটরিয়ামে এ কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে।

কাউন্সিলে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগে কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও রাজশাহী সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।

কাউন্সিলের উদ্বোধন করবেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি এইচএম বদিউজ্জামান সোহাগ এবং প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত থাকবেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম। এছাড়াও রাজশাহী মহানগর ও জেলা আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতারা উপস্থিত থাকবেন বলে কাউন্সিল আয়োজক সূত্রে জানা গেছে।

এদিকে কাউন্সিলকে কেন্দ্র করে নেতৃত্ব পেতে জেলা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের মধ্যে জোর তৎপরতা শুরু হয়েছে।

জেলা ছাত্রলীগ সূত্রে জানা গেছে, সর্বশেষ ২০০৩ সালে রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়। ওই কাউন্সিলে ভোটের মাধ্যমে জি এম হিরা বাচ্চু জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এবং কামরুল হাসান সুজন সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। এরপর গত ১১ বছরে রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়নি।

মাঝে ২০১০ সালে কোনো কাউন্সিল ছাড়াই আগের কমিটি ভেঙে দিয়ে কেন্দ্র থেকে একটি কমিটি করে পাঠানো হয়। এতে রোকনুজ্জামান রিন্টুকে সভাপতি এবং মামুনুর রশিদ সরকার মাসুদকে সাধারণ সম্পাদক করে ১০১ সদস্যের একটি কমিটি দেওয়া হয়। ওই কমিটির সাধারণ সম্পাদক মামুনুর রশিদ সরকার সম্প্রতি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক হিসেবে যোগদান করায় ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন যুগ্ম সম্পাদক ওমর ফারুক ফারদিন।

জেলা ছাত্রলীগের একাধিক সূত্র জানিয়েছে,বুধবার অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া কাউন্সিলে জেলা ছাত্রলীগের বর্তমান ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক ফারদিন সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এছাড়া ওই পদে কামরুল ইসলাম মিন্টু, মোফাজ্জল হক নাসিম ও ফিরোজ মাহমুদ প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বলে শোনা যাচ্ছে।

এদের মধ্যে ফারদিন, মোফাজ্জল ও ফিরোজ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী এবং কামরুল হাসান রাজশাহী কলেজের শিক্ষার্থী। আর সাধারণ সম্পাদক পদের জন্য দৌড়ঝাঁপ করছেন বাঘা উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও রাবি শিক্ষার্থী মেরাজুল ইসলাম মেরাজ, রাজশাহী কলেজ শিক্ষার্থী তুষার আহমেদ, হাবিবুর রহমান ও মোয়াজ্জেম হোসেন।

ছাত্রলীগের আরেকটি সূত্র নিশ্চিত করেছে, কাউন্সিলে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক ছাড়াও রাজশাহী মহানগর ও জেলা আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতারা উপস্থিত থাকবেন। তাদের ওপরই নির্ভর করবে জেলা ছাত্রলীগের নতুন কমিটিতে কারা দায়িত্ব পাবেন।

কাউন্সিল প্রসঙ্গে জেলা ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক ফারদিন বলেন, কাউন্সিল আয়োজনের সব প্রস্তুতি প্রায় শেষ পর্যায়ে এসেছে। কাউন্সিলকে ঘিরে নেতা-কর্মীদের মধ্যে উৎসাহ কাজ করছে।

সাকি/