সুব্রত’র জামিন আবেদন আবার নাকচ

  • syed baker
  • May 6, 2014
  • Comments Off on সুব্রত’র জামিন আবেদন আবার নাকচ
subrata-roy
subrata-roy
সুব্রত রায় (ফাইল ছবি)

আপাতত কারাগারই একমাত্র ঠিকানায় পরিণত হয়েছে সাহারা প্রধান সুব্রত রায়ের জন্য। মঙ্গলবার তার জামিন আবেদন আবার নাকচ করে দিয়েছে ভারতীয় আদালত। একই সাথে আদালত সাহারাকে প্রতিষ্ঠান প্রধানের মুক্তির জন্য নতুন প্রস্তাব পেশ করার নির্দেশ প্রদান করেছেন। খবর এনডিটিভির।

আদলতের বাধ্যবাধকতা অনুযায়ী সুব্রত রায়ের মুক্তি বাবদ ১০ হাজার রুপি পরিশোধ করতে রাজি আছে সাহারা, কিন্তু তা একাধিক কিস্তিতে। এর আগেও সাহারা পক্ষ থেকে এই ধরনের প্রস্তাব দেওয়া হলেও বারবার নাকচ করে দিয়েছেন আদালত। তাই মঙ্গলবার একটু কড়া ভাষায় সাহারাকে শাসিয়ে দিলেন আদালত। এই সময় আদালত সাহারাকে লুকোচুরি বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন। আদালত বলেন, সাহারা ও সুব্রত দুজনই বারবার নির্দেশ উপেক্ষা করে এটাই প্রমাণ করতে চাইছে যে, সুব্রত’র আটকাদেশ অবৈধ।

আদালত সাহারাকে সুব্রত রায়ের মুক্তির জন্য নতুন প্রস্তাব পেশ করার নির্দেশ প্রদান করেন। তবে এ ক্ষেত্রে অবশ্যই গ্রহণযোগ্য এবং জামানত প্রদানের ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব পেশ করতে হবে বলে নির্দেশনা প্রদান করেছেন।

উল্লেখ্য, প্রায় দুই বছর আগে পুঁজি বাজার থেকে অবৈধভাবে ২৪ হাজার কোটি রুপি মূলধন সংগ্রহ করার অভিযোগে সাহারার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে ভারতের পুঁজি বাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা সিকিউরিটিস অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ বোর্ড (সেবি)। শুনানি শেষে ভারতীয় আদালত সেবির অভিযোগ সমর্থন করে বিনিয়োগকারীদের অর্থ ফেরত দেয়ার নির্দেশ দেয় সাহারা কর্তৃপক্ষকে।

কিন্তু আদালতের নির্দেশের পরেও বিনিয়োগকারীদের ১৯ হাজার কোটি রুপি ফেরত না দেয়ার পরিপ্রেক্ষিতে গত মঙ্গলবার সুব্রত রায়সহ সাহারা গ্রুপের আরও চার পরিচালককে হাজির হওয়ার নির্দেশ দেয় ভারতীয় সুপ্রিম কোর্ট।

মায়ের অসস্থতার কারণ দেখিয়ে আদালতে হাজিরা প্রদান থেকে অব্যাহতি আবেদন জানান সুব্রত’র আইনজীবি। কিন্তু সে আবেদন খারিজ করে আদালত তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে।

এরই প্রেক্ষিতে লখনৌ পুলিশের কাছে সুব্রত আত্মসমর্পণ করলে আদালত তাকে হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন। পরবর্তীতে সাহারার পক্ষ থেকে সুব্রত’র জান্মিনের একাধিক আবেদন পেশ করা হলেও আদালত তা নাকচ করে দেন।

অবশেষে গত ২৬ মার্চ অর্থ সেবি বরারবর অর্থ পরিশোধের শর্তে সুব্রত’র জামিন মঞ্জুর করেন আদালত। শর্ত অনুযায়ী, কোম্পানি প্রধানের মুক্তির জন্য ৫ হাজার কোটি রুপি নগদ এবং ৫ হাজার কোটি রুপির বন্ড প্রদান করতে হবে সাহারাকে। কিন্তু বিভিন্ন জায়গায় দেন-দরবার করেও ৫ কোটি রুপি জোগাড় করতে ব্যর্থ হয় সাহারা। এরই প্রেক্ষিতে আদালতের কাছে জামিনের অর্থ কিস্তিতে পরিশোধের আবেদন জানায় প্রতিষ্ঠানটি।