অপহরণ, গুম, খুন দেশের অর্থনীতিতে প্রভাব ফেলবে: দেবপ্রিয়

deboprioঅবিলম্বে অপহরণ, গুম, খুন বন্ধ করা না গেলে ও অপরাধীদের শাস্তির আওতায় আনা না হলে বিষয়টি দেশের অর্থনীতিতে প্রভাব ফেলতে শুরু করবে বলে আশংকা প্রকাশ করেছেন দেশবরেণ্য অর্থনীতিবিদ ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য্য।

রোববার বিকেলে জাতীয় সংসদ ভবনের সামনে গুম-খুন-হত্যার প্রতিবাদে করা এক  মানববন্ধনে ড. দেবপ্রিয় বলেন, আমাদের আজকের প্রতিবাদ কোনো রাজনৈতিক উদ্বেগ প্রকাশের জন্য নয় বিষয়টি সর্বস্তরের সাধারণ মানুষের।

একটা দেশে অব্যাহতভাবে গুম খুন অপহরণ চললে অর্থনৈতিক কাঠামো ভেঙ্গে পড়তে পারে। ইতিমধ্যে দেশের ব্যবসায়ীরা বিনিয়োগ কমাতে শুরু করেছেন।

তিনি বলেন, অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির জন্য প্রয়োজন সুশাসন। দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করা দরকার। নাগরিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে অবিলম্বে শাসকগোষ্ঠীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি।

তিনি বলেন, অপরাধীরা দেশের প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ীদের চিহ্নিত করে অপহরণ চালাচ্ছে। ইতোপূর্বে স্বর্ণ ব্যবসায়ী, গার্মেন্টস ব্যাবসায়ীসহ নানা স্তরের ব্যবসায়ীদের অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায় করেছে। অপহৃত অনেকের হদিস এখনও পাওয়াও যায়নি। এ অবস্থা চলতে থাকলে দেশের ব্যবসায়ী সমাজ বিনিয়োগে আগ্রহ হারিয়ে ফেলবে।

মানববন্ধনে বিশিষ্ট আইনবিদ ড. শাহদীন মালিক বলেন, আর কোনো গুম হত্যা আমরা সহ্য করব না। সারাদেশে যে নৈরাজ্যের আতংক সৃষ্টি হয়েছে বিশেষ করে নারায়নগঞ্জ থেকে র‍্যাব বাহিনী প্রত্যাহার করার দাবি জানাচ্ছি।

সাদা পোষাকে পুলিশী বন্ধ করার দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, আপনারা অপহৃতদের পরিবারের স্বজনদের আর্তনাদ শুনেছেন। আমরা চাই আর কোনো সিভিল ড্রেসে কোনো নাগরিককে যেন গ্রেপ্তার করা না হয়। যদি গ্রেপ্তার করতেই হয় তবে কারণ দর্শিয়ে আইনানুগ ভাবে করতে হবে।

তিনি বলেন, আইনের পোশাক গায়ে না রেখে গ্রেপ্তার করতে আসলে অপহরণকারীদের চিনতে সুবিধা হবে।   এ সময় তিনি অপহৃতদের স্বাভাবিক ভাবে উদ্ধার করে ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য দাবিও জানান।

দোষীদের এক মাসের মধ্যে শাস্তির আওতায় আনতে হবে এমন হুশিয়ারি উচ্চারণ করে তিনি বলেন, দেশে কোনো অপহরণ, হত্যাকারীর বিচার হবে না জনগণ তা মেনে নেবে না। অপহরণকারীদের অবশ্যই এক মাসের মধ্যে শাস্তির আওতায় আনতে হবে।

ঘণ্টা ব্যাপি অনুষ্ঠিত এই মানববন্ধনের সমাপ্তি ঘোষণাকালে ড. শাহদীন আরও বলেন, কাল থেকে দেশে আর একটি অপহরণের ঘটনা ঘটলে তার জন্য সরকারকে জনগণের কাছে জবাবদিহি করতে হবে।

এদিকে মানববন্ধনে সংহতি জানিয়ে ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, অপরাধীরা আর যেন আস্কারা না পায় সে জন্য আমাদেরকে চলমান আন্দোলন বেগমান করতে হবে।

দেশের সুশীল নাগরিকদের আয়োজিত এই মানববন্ধনে অন্য বক্তারা বলেন, রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতার সুযোগ নিয়ে দেশের গডফাদার, দাগী অপরাধীরা উৎসাহ নিয়ে নতুন ঘটনার জন্ম দিচ্ছে।

তারা বলেন, অপহরণ গুম, খুন বন্ধ করতে দেশের ক্ষমতাসীন সরকার ও সকল রাজনৈতিক দলগুলোকে গোলটেবিল আলোচনায় বসে এর সমাধান করতে হবে।

তারা বলেন, অপহৃতদের ফিরে পাওয়ার কোনো নিশ্চয়তা এখন আর নেই। এভাবে আর কতদিন দেশের সাধারণ মানুষ রাজনীতির বলি হবে তাও তাদের অজানা।

সুজন সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদারদারের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, ড. হামিদা হোসেন, আমেনা মহসিন, সি.আর.আবরার, শিরিন হক প্রমুখ।

এমআর/সাকি