তুরস্কে সংঘর্ষ, কম্বোডিয়ায় মজুরি বাড়ানোর দাবি

  • syed baker
  • May 1, 2014
  • Comments Off on তুরস্কে সংঘর্ষ, কম্বোডিয়ায় মজুরি বাড়ানোর দাবি
turkey may day

turkey may dayপৃথিবীজুড়ে বেশ সাড়ম্বরে পালিত হচ্ছে মে দিবস। বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশের শ্রমিকরা মিছিল-সমাবেশ-র‍্যালীর মাধ্যমে এই দিনটিকে উদযাপন করছেন। আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবস উপলক্ষে অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি এড়াতে সরকারিভাবেও গড়ে তোলা হয়েছে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা। তবে, কয়েকটি দেশে সরকারের চোখ রাঙ্গানি উপেক্ষা করে শ্রমিকরা বিভিন্ন আয়োজনের মধ্য দিয়ে মে দিবস উদযাপন করেন। প্রায় প্রতিটি দেশে শান্তিপূর্ণভাবে মে দিবস উদযাপিত হলেও তুরস্কে মে দিবস উদযাপনের সময় পুলিশের সাথে শ্রমিকদের সংঘর্ষের খবর পাওয়া গেছে।

বিবিসি জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার তুরস্কের রাজধানী ইস্তাম্বুলের তাসকিম স্কয়ারে শ্রমিকরা জড়ো হতে চাইলে বাধা দেয় পুলিশ। এই ঘটনায় ক্ষুদ্ধ শ্রমিকরা পুলিশের সাথে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। পুলিশ টিয়ার গ্যাস ছুড়ে শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করার চেষ্টা করলে তারা পাথর ছুড়ে পুলিশের হামলার জবাব দেয়। তুর্কি গণমাধ্যমের বরাত মতে, তাসকিম স্কয়ারে প্রায় ৪০ হাজার পুলিশ মোতায়েন করেছে দেশটির সরকার।

এদিকে কম্বোডিয়ায় কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে মে দিবস পালিত হচ্ছে। সিনহুয়া জানিয়েছে, দিনের শুরু থেকেই গার্মেন্ট শ্রমিকরা রাজধানী ফনম পেনে অবস্থিত ফ্রিডম পার্কে জড়ো হতে থাকে। এই পার্কে আয়োজিত এক সমাবেশে বিরোধীদলের পক্ষ থেকে সরকারের শ্রমিক দমন-পীড়নের নিন্দা জানানো হয়। এই সময় বিরোধী দল ক্যাম্বোডিয়ান ন্যাশনাল রেসকিউ পার্টির পক্ষ থেকে পোশাক শ্রমিকদের সর্বনিম্ন মজুরি ১৬০ মার্কিন ডলার নির্ধারণের দাবি জানানো হয়।

অল আফ্রিকা ডট কম জানিয়েছে, মে দিবসে অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি এড়াতে রাজধানী আবুজাকে নিরাপত্তা চাদরে ঢেকে ফেলে নাইজেরিয়ার সরকার। এই নিরাপত্তার মধ্য নাইজেরিয়া লেবার কংগ্রেসের ব্যানারে শ্রমিকরা রাজধানীতে এসে জড়ো হয়। এই সময় শ্রমিক নেতারা নিজেদের মধ্য ঐক্য প্রতিষ্ঠার ঘোষণা দেন। তারা নাইজেরিয়ার উন্নতি এবং শান্তি নিশ্চিত করার লক্ষ্যে একত্রে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

এদিকে এদিনে রাশিয়ায় সোভিয়েত যুগের আদলে মে ডে প্যারেডের আয়োজন করা হয়েছে। ইউএসএ টুডে জানিয়েছে, রাজধানী মস্কোর রেড স্কয়ারে প্রায় ২০ লাখ মানুষের অংশগ্রহণে এই প্যারেড অনুষ্ঠিত হবে। তবে, ক্রেমলিনের পক্ষ থেকে সোভিয়েতের ফিরে আসার সম্ভাবনা নাকচ করে দেওয়া হয়েছে। সাম্প্রতিক সময়ে পার্শ্ববর্তী দেশ ইউক্রেন রাশিয়ার আগ্রাসনের প্রেক্ষিতে সোভিয়েতের প্রত্যাবর্তনের শঙ্কা প্রকাশ করেছিল পশ্চিমারা। তাই মে দিবস উপলক্ষে শ্রমিকদের প্যারেড পশ্চিমাদের আশঙ্কাকে আরও প্রকট করে তুলেছে।

এছাড়াও জার্মানি, হংকং, অস্ট্রেলিয়া, চীন, ভিয়েতনাম, মালয়েশিয়া, তাইওয়ান, ইন্দোনেশিয়া, থাইল্যান্ডসহ বিভিন্ন দেশে শান্তিপূর্ণভাবে মে দিবস উদযাপনের খবর পাওয়া গেছে।

উল্লেখ্য, ১৮৮৪ সালে যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো শহরের একদল শ্রমিক দৈনিক ৮ ঘণ্টা কাজ করার জন্য আন্দোলন শুরু করেন এবং তাদের এ দাবী কার্যকর করার জন্য ১৮৮৬ সালের ১ মেপর্যন্ত সময় বেধে দেয়। কিন্তু কারখানা মালিকগণ এ দাবী মেনে না নিলে ১৮৮৬ সালের ৪ মে শিকাগোর হে-মার্কেট নামক এক বাণিজ্যিক এলাকায় শ্রমিকগণ মিছিলের উদ্দেশ্যে জড়ো হন। এই সময় পুলিশ দলের কাছে এক বোমার বিস্ফোরণে এক পুলিশ নিহত হলে পুলিশের সাথে শ্রমিকদের সংঘর্ষ বেধে যায়। এই ঘটনায় ১১জন শ্রমিক নিহত হন। পরবর্তীতে পুলিশ হত্যা মামলায় আটজন শ্রমিককে অভিযুক্ত করা হয়এবং ১৮৮৭ সালের ১১ই নভেম্বর উন্মুক্ত স্থানে ৬ জনের ফাঁসি কার্যকর করা হয়। ২৬শে জুন, ১৮৯৩ ইলিনয়ের গভর্ণর অভিযুক্ত আটজনকেই নিরপরাধ বলে ঘোষণা দেন, এবং শ্রমিকদের ওপর হামলার হুকুম প্রদানকারী পুলিশের কমান্ডারকে দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্ত করা হয়।

১৮৯০ সালের ১৪ জুলাই অনুষ্ঠিত ইন্টারন্যাশনাল সোশ্যালিষ্ট কংগ্রেসে ১ মে শ্রমিক দিবস হিসেবে ঘোষনা করা হয়। পরবর্তীতেজাতিসংঘের অঙ্গসংস্থা ইন্টারন্যাশনাল লেবার অর্গানাইজেশনের প্রচেষ্টায় ১ মে পৃথিবীজুড়ে আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবস হিসেবে স্বীকৃতি লাভ করে।