কমতির দিকে ঢাকার তাপমাত্রা

Hot_dayকমতে শুরু করেছে ঢাকার তাপমাত্রা। গতকালের চেয়ে আজ শুক্রবার ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা কমেছে। শুক্রবার ঢাকার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিলো ৪০ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস ও সর্বনিম্ন ছিল ২৮ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গতকাল ঢাকার তাপমাত্রা ছিল ৪২ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা ৫৪ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের সূত্রে জানা যায়, চট্টগ্রামে তাপমাত্রা কিছুটা কমেছে। আজ এ শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৪ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বনিম্ন ২৭ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

রাজশাহীতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৪০ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বনিম্ন ২৪ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

খুলনায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বনিম্ন ২৭ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

রংপুরে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বনিম্ন ২২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সিলেটে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৯ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বনিম্ন ২৩ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

বরিশালে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৮ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বনিম্ন ২৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, দেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড ছিল রাজশাহীতে। সেটা রেকর্ড করা হয় ১৯৭২ সালের ১৮ মে। সেদিনের তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৪৫ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস।এছাড়া, ১৯৬০ সালের ৩০ এপ্রিলে ঢাকায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৪২ দশমিক ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আজকের জন্য আবহাওয়া দপ্তরের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে,আকাশ অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলাসহ সারা দেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে।

ঢাকা, টাঙ্গাইল,ফরিদপুর,রাজশাহী,ঈশ্বরদী,খুলনা,মংলা,যশোর ও চুয়াডাঙ্গা অঞ্চলগুলোর ওপর দিয়ে তীব্র তাপপ্রবাহ এবং দেশের অন্যত্র মাঝারি থেকে মৃদু তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা অব্যাহত থাকতে পারে।