গরমের সবজির দামেও বৈশাখের উত্তাপ

summer.vegphotoবৈশাখের মাঝামাঝি এসে বাড়ছে রোদের তাপ। অসহ্য গরমে ওষ্ঠাগত নগরবাসীর প্রাণ। এই গরমে মরার ওপর খাঁড়ার ঘায়ের মতো বাজারেও বাড়ছে গরমের সবজির দাম।

বুধবার রাজধানীর পাইকারি ও খুচরা বাজারে দেখা গেছে, গরমের সবজি ঝিঙ্গা, চিচিঙ্গা, করলা, উস্তা, পেপে, টমেটো, মিষ্টি কুমড়া, জালি কুমড়া, লাউ, শসা ও পুঁইশাকের দাম আগের তুলনায় কিছুটা বেড়েছে।

রাজধানীর কারওয়ান বাজার, হাতিরপুল ও শান্তিনগর কাঁচাবাজার ঘুরে দেখা গেছে, প্রতিকেজি ঝিঙ্গা, চিচিঙ্গা পাইকারি বাজারে ৩০ টাকা আর খুচরা বাজারে ৪০ টাকা, করলা পাইকারি বাজারে ২৫ টাকা আর খুচরা বাজারে ৩০ টাকা, উস্তা পাইকারি বাজারে ৪০ টাকা আর খুচরা বাজারে ৬০ টাকা, পেঁপে পাইকারি বাজারে ২০ টাকা আর খুচরা বাজারে ৩০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

এছাড়া, টমেটো পাইকারি বাজারে ৩০ টাকা আর খুচরা বাজারে ৪০ টাকা, মিষ্টি কুমড়া (বড়) পাইকারি বাজারে ৩০-৭০ টাকা আর খুচরা বাজারে ৪০-১০০ টাকা, জালি কুমড়া পাইকারি বাজারে ২০ টাকা আর খুচরা বাজারে ২৫ টাকা, লাউ পাইকারি বাজারে ২০-৩০ টাকা আর খুচরা বাজারে ৪০-৫০ টাকা, পুঁইশাক পাইকারি বাজারে প্রতি আটি ৫ টাকা আর খুচরা বাজারে ১০ টাকা, শসা পাইকারি বাজারে ২০ টাকা আর খুচরা বাজারে ৩০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।  ঢেড়স ও পটল উভয় বাজারে কেজিপ্রতি ৩০ ও ৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

উপরোক্ত পণ্যগুলোর ক্ষেত্রে দেখা গেছে, আগের কয়েক দিনের তুলনায় দাম ধারাবাহিকভাবে বেড়েছে।

শান্তিনগর বাজারের সবজি বিক্রেতা মোহাম্মাদ সিদ্দিক জানান, গরমের কারণে লাউ, করলা, শসা, ঝিঙ্গা, চিচিঙ্গা ও জালি কুমড়ার চাহিদা বেশি থাকায় এই পণ্যগুলোর দাম বেড়েছে।

এছাড়া, ভালো সংরক্ষণ ব্যবস্থা না থাকায় গরমে অনেক সবজি নষ্ট হয়ে যায় । এই নষ্ট হয়ে যাওয়া সবজির ক্ষতি পুষিয়ে নিতে কখনও কখনও বাড়তি দাম রাখতে হয় বলে জানালেন সিদ্দিক।

এছাড়া বাজার ঘুরে দেখা গেছে, কিছু কিছু সবজির দাম পাইকারি বাজারের চেয়ে খুচরা বাজারে দ্বিগুণের কাছাকাছি। কাঁচামরিচ, গোল বেগুন, শিম ও কচুর লতি পাইকারি বাজারে ৩০ টাকা আর খুচরা বাজারে ৫০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা গেছে। এছাড়াও কাঁচা কলা পাইকারি বাজারে ১৫ টাকা আর খুচরা বাজারে ৩০ টাকা, লেবু পাইকারি বাজারে ১০-২০ টাকা আর খুচরা বাজারে ২০-৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

সবজির পাশাপাশি মাছের দামের ক্ষেত্রেও পাইকারি ও খুচরা বাজারে বেশ তারতম্য লক্ষ্য করা গেছে। কাতল পাইকারি বাজারে ৩৫০ টাকা আর খুচরা বাজারে ৪৫০ টাকা, চায়না পুঁটি পাইকারি বাজারে ১০০ টাকা আর খুচরা বাজারে ১৪০ টাকা, পাঁঙ্গাস পাইকারি বাজারে ১১০ টাকা আর খুচরা বাজারে ১৫০-১৬০ টাকা, বড় চিংড়ি পাইকারি বাজারে ৭৫০ টাকা আর খুচরা বাজারে ৮৫০-৯৫০ টাকায়, কার্ফু মাছ পাইকারি বাজারে ১৫০ টাকা আর খুচরা বাজারে ২৫০ টাকা, শিং মাছ পাইকারি বাজারে ৬০০-৭০০ টাকায় আর খুচরা বাজারে ১২০০ টাকায় বিক্রি করতে দেখা গেছে।

তবে পয়লা বৈশাখ উপলক্ষ্যে ইলিশের দাম সাধারণ ক্রেতাদের নাগালের বাইরে থাকলেও এখন অনেকটাই কমেছে। পাইকারি বাজারে ৯০০ গ্রাম ইলিশ প্রতি কেজি ৮০০-৯০০ টাকা আর খুচরা বাজারে ১২০০-১৪০০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা গেছে।