মাছের আদলে মহৌষধ!

iron fish

iron fishঔষধের স্বাদ যত না তেতো, তার চেয়ে বেশি বিদঘুটে তার নাম এবং গঠন। তাই অধিকাংশ রোগী ইচ্ছার বিরুদ্ধে পথ্য গিলেন। তবে মাঝেমাঝে এমন রোগীরও হদিস মেলে যে, যারা মারা যাবেন কিন্তু ঔষধ গলদকরণ করবেন না। তাই চিকিৎসকরা এইসব রোগীদের সুস্থ করতে একটু ভিন্ন পদ্ধতির আশ্রয় নেনে। এই যেমন, খাবার আদল ঔষধ তৈরি কিংবা খাবারের ভিতরে পথ্য ঢুকিয়ে দেওয়া। সম্প্রতি এমন এক ঔষধের সন্ধান পাওয়া গেছে কম্বোডিয়ায়। মাছের আদলে তৈরি এই বস্তুটি প্রকৃত পক্ষে লৌহের ঘাটতি মেটানোর মহৌষধ। খবর ডয়েচে ভেলের।

বিশ্বখ্যাত দাতব্য সংস্থা হেলেন কেলার ইন্টারন্যাশনালের গবেষকরা এই আয়রন ফিশটি উদ্ভাবন করেছেন। তারা জানান, কম্বোডিয়ার লৌহশূন্যতা চরম আকারে পৌঁছেছে। কিন্তু দেশটির গ্রামাঞ্চলে বেশ কয়েকবার চেষ্টা চালিয়ে গ্রামবাসীদের আয়রন ট্যাবলেট খাওয়া ব্যর্থ হয়েছেন তারা।

পরবর্তীতে গ্রামবাসীদের খাবারের সাথে লোহার গুড়া মিশিয়ে দেওয়া অথবা লোহার পাত্রে রান্না করার পরামর্শ দিয়েও ব্যর্থ হন তারা। তাই, শেষ পর্যন্ত কম্বোডিয়ার এক জনপ্রিয় মাছের আদলে বানালেন আয়রন ফিশ নামের এই মহৌষধ।

গবেষক দল জানিয়েছেন, বেশ খুশি মনে কম্বোডিয়ারনরা এই ঔষধকে খাবার হিসেবে গ্রহণ করছে। এতে ধীরে ধীরে দেশটিতে রক্তশূন্যতাসহ লৌহের অভাবজনিত নানা রোগ-ব্যাধি কমে আসছে।

বিশ্বজুড়ে লৌহের অভাব দিনের দিন চরম রূপ ধারণ করছে। হেলেন কেলার ইন্টারন্যাশনালের আশা, এই দুর্যোগ মোকাবেলার অন্যতম হাতিয়ার হতে পারে এই মাছের আদলে তৈরি মহৌষধ।