সাড়ে চার মাসেও আর্থিক সুবিধা পায়নি পাটখাত

  • Emad Buppy
  • April 21, 2014
  • Comments Off on সাড়ে চার মাসেও আর্থিক সুবিধা পায়নি পাটখাত

sacksসাড়ে চার মাসেও আর্থিক সুবিধা পায়নি পাটখাত। সরকারি পাটকলের ন্যায় বেসরকারি পাটকলসমূহকে আর্থিক সুবিধা প্রদানের নির্দেশ দিয়েছিল অর্থমন্ত্রণালয়। বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছে পাঠানো এক চিঠিতে পরবর্তী দুই মাসের মধ্যে এ সম্পর্কিত নেওয়া সব পদক্ষেপ জানানোর জন্যও নির্দেশ দিয়েছিল মন্ত্রণালয়।

গত বছরের ১ ডিসেম্বর পাঠানো এক চিঠিতে ফেব্রুয়ারির মধ্যে তথ্য জানানোর কথা থাকলেও আজও তার কোনো কাজই করেনি প্রতিষ্ঠান দুটি।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগের ফিনান্সিয়াল এনালিস্ট ড. নারায়ন চন্দ্র সিংহ স্বাক্ষরিত চিঠিতে সরকারি পাটকলের ন্যায় বেসরকারি পাটকলসমূহকে সুবিধা প্রদানের জন্য বলা হয়েছিল। বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় কর্তৃক উত্থাপিত দাবিসমূহের বিপরীতে এসব সুপারিশ বাস্তবায়নের নির্দেশ দেওয়া হয়।

চিঠিতে ২০১১ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত পূর্বের ঋণ ৫ বছরের সুদসহ ব্লক একাউন্টে রেখে ৩০ মাস পর হতে ৮ শতাংশ সুদ হারে আগামি ১০ বছরে পরিশোধের ব্যবস্থা করার জন্য বলা হয়েছে। তবে এক্ষেত্রে তফসিলি ব্যাংকসমূহ পাটকলগুলোর বিদ্যামান আর্থিক সংকট বিবেচনায় নিয়ে ব্যাংক-গ্রাহক সম্পর্কের ভিত্তিতে এ কাজ করতে পারবে বলে চিঠিতে উল্লেখ করা হয়।

ওই চিঠিতে পাটখাতের জন্য রপ্তানি ঋণের প্রজ্ঞাপনটি সংশোধনের কোনো সুযোগ আছে কিনা তা বাংলাদেশ ব্যাংকে জানাতে বলা হয়েছিল। বেসরকারি পাটকলগুলোকে পুনঃঅর্থায়ন সাড়ে চার মাসেও আর্থিক সুবিধা পায়নি পাটখাত। জুট ব্যাগ প্যাকেজিং আইন বাস্তবায়নে পদ্ধতিগত জটিলতা নিরসন করে তা বাস্তবায়নের জন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়কে দ্রুত অবহিত করতে বলেছিল এ মন্ত্রণালয়।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ জুট মিলস এসোসিয়েশনের সাধারণ-সম্পপাদক আব্দুল বারিক খান অর্থসূচককে বলেন, পাটকলগুলোকে বাঁচাতে সরকারের সহযোগিতা প্রয়োজন। এজন্য সরকার ডিসেম্বরেই সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানকে চিঠি দিয়ে দুই মাসের মধ্যে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে নির্দেশ দেয়। কিন্তু প্রতিষ্ঠানগুলো এখনও এ ব্যাপারে তেমন কনো পদক্ষেপ নেয়নি। তবে এসব পদক্ষেপ বাস্তবায়নের জন্য আমাদের পক্ষ থেকে জোর তৎপরতা চালানো হচ্ছে। বর্তমানে ৮০০ থেকে ৯০০ কোটি টাকা ব্লক একাউন্টে জমা আছে বলে তিনি জানান।

বেসরকারি পাটকলগুলোর জন্য অর্থমন্ত্রণালয়ের এ নির্দেশের প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ ব্যাংক কোনো পদক্ষেপ নিয়েছে কিনা জানতে চাইলে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এক কর্মকর্তা অর্থসূচককে বলেন, অর্থমন্ত্রণালয়ের চিঠি আমরা পেয়েছি। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। সম্প্রতি ২৭টি তফসিলি ব্যাংকের সাথে বৈঠক করা হয়েছে। বেসরকারি পাটকলের জন্য রপ্তানি ঋণের প্রজ্ঞাপন সংশোধন এবং পুনঃঅর্থায়ন তহবিলের বিষয়টি নিয়েও কাজ চলছে।

এসএই/ এএস