‘শ্রমিকদের ঘামেই বাংলাদেশ বেঁচে আছে’

শ্রমিকশ্রমিকদের গায়ের ঘামেই বাংলাদেশ বেঁচে আছে। তাই তাদেরকে মুনাফা তৈরির যন্ত্র আর রাজনৈতিক ফায়দা লুটে নেওয়ার হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করা যাবে না বলে জানালেন গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের নেতারা।

রবিবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে সম্মিলিত গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন আয়োজিত এক মানববন্ধনে সংগঠনটি এ দাবি জানায়।

মানববন্ধনে সংগঠনের সভাপতি নাজমা আক্তার বলেন, আমরা আর কত নিরীহ শ্রমীকদের লাশ হতে দেখব শুধু মাত্র মালিক এবং সরকারের অবহেলা আর অতি মুনাফার কারণে। শ্রমিককে মানুষ না ভেবে পণ্য মনে করে স্বজ্ঞানে তারা শ্রমিক হত্যা করেছে। সস্তা শ্রম হিসেবে বিবেচনা করা হয় তাদেরকে।

তিনি বলেন, রানা প্লাজার মালিকের সকল সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করলেই হবে না যথাযোগ্য শাস্তির ব্যবস্থাও করে আগামি ২৪ এপ্রিলের মধ্যে নিহত ও আহত ক্ষতিগ্রস্থ শ্রমিকদের ক্ষতি পূরণ দিতে হবে।

শ্রমিকরা বিশ্বের বুকে লাল সবুজের পতাকা পরিচয় করিয়ে দিলেও এখনও  স্বার্থণ্যাসী মহল এসব শ্রমিকদের ন্যায্য ক্ষতিপূরণ, জীবনের নিরাপত্তা, চিকিৎসার নিশ্চয়তা, আজও নিশ্চিত করতে পারেনি।

নাজমা বলেন, শ্রমিককে তার যোগ্য মর্যাদা না দিলে আর এই অস্থিতিশীল পরিস্থিতি চলতে থাকলে আমাদের এই শিল্প টিকিয়ে রাখা সম্ভব হবে না।

গার্মেন্টস শিল্পকে রক্ষায় সকলকে এক সাথে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, রানা প্লাজার ঘটনা দিয়ে শিক্ষা গ্রহণ করে দেশের ভাবমূর্তি ও গার্মেন্টস শিল্পকে রক্ষায় এগিয়ে আসতে হবে।

মানববন্ধনে সংগঠনের সভাপতি নাজমা আক্তারের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন ‍সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক নাহিদুল হাসান নয়ন, সংগঠনের কেন্দ্রীয় নেতা মমতাজ বেগম, খাদিজা আক্তার, পারভিন আক্তার, নাসির উদ্দিন, আনিসুর রহমান প্রমুখ।

জেইউ/সাকি