আগের ঋণমানে বাংলাদেশ

moody's, মুডিস

moody's, মুডিসগত বছরের চরম রাজনৈতিক অস্থিরতা এবং সংঘাতের পরও মুডি’স-এর রেটিংয়ে আগের ঋণমান ধরে রাখতে পেরেছে  বাংলাদেশ। টানা পঞ্চমবারের মতো বিএ-৩ রেটিং পেয়েছে দেশটি। যা অর্থনীতির সুষ্ঠু ও জোরালো অগ্রগতির জন্য স্বীকৃতি। দেশের অর্থনীতির স্থিতিশীলতার পূর্বাভাস দিয়েছে সংস্থাটি।

বৃহস্পতিবার সিংঙ্গাপুর থেকে রেটিং সংক্রান্ত এ রিপোর্টটি প্রকাশ করেছে মুডি’স। ঋণ পর্যালোচনা: বাংলাদেশ’শীর্ষক রিপোর্টে বলা হয়, বছরভর রাজনৈতিক অস্থিরতা আর তৈরি পোশাক শিল্পে একাধিক দূর্ঘটনার পরও অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির ব্যাপক সম্ভাবনা রয়েছে দেশটির। সংস্থাটির মতে, এ বছর বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি দাঁড়াতে পারে ৫ দশমিক ৮ শতাংশ। এটি গত এক দশকের গড় প্রবৃদ্ধির চেয়ে কম হলেও স্বল্পোন্নত অনেক দেশ থেকে বেশি।

আগের ঋণমান অপরিবর্তিত রাখার পক্ষে আন্তর্জাতিক ঋণমাণ সংস্থাটি তিনটি কারণ তুলে ধরেছে। এগুলো হচ্ছে-অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির ভালো সম্ভাবনা, নীতি সংস্কারে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি এবং বৈদেশিক অর্থায়নে সীমিত ঝুঁকি।

রপ্তানি আয়ে ভালো প্রবৃদ্ধি, বৈদেশিক সহায়তার অর্থের সন্তোষজনক ছাড়,  প্রত্যক্ষ বিদেশী বিনিয়োগ এবং ইসিএফের আওতায় আইএমএফের ঋণ সহায়তায় বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ রেকর্ড ২০ বিলিয়ন ডলার পৌঁছেছে। এতে বৈদেশিক মুদ্রার এ রিজার্ভ বিশ্ব ঋণ বাজারের ঝাঁকুনী থেকে বাংলাদেশকে অনেক নিরাপদ রাখবে।