ছিনতাইকালে আটক রাবি ছাত্রলীগ নেতা

rabi

rabiরাজশাহীর বালিয়াপুকুর এলাকায় ছিনতাই করার সময় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ ক্যাডার আয়াতুল্লা আল বেহেস্তি ও সাদ্দামকে আটক করেছে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের একটি টহল দল।

এদিকে, মঙ্গলবার রাত ৮ দিকে আটকের পর মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওই দুই ছাত্রলীগ নেতাকে তার থানায় দিতে বলেন।

কিন্তু ডিবির টহল পুলিশ তা করতে না চাইলে মতিহার থানার ওসি আলমীগর হোসেনের সাথে ডিবি ওসি জিয়াউর রহমানের ছাত্রলীগ নেতাদের নিয়ে বাকবিতণ্ডা লেগে যায়।

তবে সব শেষে আটক দুই ছাত্রলীগ নেতাকে ডিবি অফিসে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন জিয়াউর রহমান।

গোয়েন্দা পুলিশের একটি সূত্র জানায়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ ক্যাডার বেহেস্তি বালিয়াপুকুরের স্থানীয় ছাত্রলীগ ক্যাডার সাদ্দামকে সাথে নিয়ে ওই স্থানে ছিনতাই করতে যায়। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে তাদের দুইজনকে আটক করা হয়।

এ খবর মতিহার থানায় পৌঁছলে ওসি আলমগীর হোসেন আসামি দুইজনকে তার থানায় দিতে বলে। ছিনতাইয়ের ঘটনাটি আড়াল করার জন্যই মতিহান থানার ওসি ছাত্রলীগের দুই নেতাকে তার কাছে হস্তান্তর করতে বলা হয় বলেও জানায় সূত্রটি।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে ডিবির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জিয়াউর রহমান বলেন, রাত ৮টা ১৫ মিনিটে খবর পাই, ডিবি পুলিশের একটি টহল দল ছাত্রলীগের দুই নেতাকে ছিনতাই করার সময় মতিহার থানাধীন বালিয়াপুকুর থেকে আটক করে।

আটকের কথা শুনে মতিহার থানার ওসি টহল দলকে চাপ দেয় ছাত্রলীগ নেতাদের তার থানায় দেওয়ার জন্য। তবে পরে তাদের ডিবিতে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মতিহার থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন বলেন, যেহেতু তাদেরকে আমার থানাধীন এলাকা থেকে আটক করা হয় তাই আমি আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ডিবির টহল দলকে আমার থানায় দিতে বলি। কিন্তু তারা তা শোনেনি।

এমআই/সাকি